প্রযুক্তি

চমৎকার ওয়েব ডিজাইনের কিছু পরামর্শ

চমৎকার ওয়েব ডিজাইনের কিছু পরামর্শ

চমৎকার ওয়েব ডিজাইনের কিছু পরামর্শ – একটি ভালো ওয়েব সাইট নির্মাণের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ  বিষয় হল ওয়েব ডিজাইন, একটি নির্দিষ্ট ডিজাইন একজনের কাছে খুবই আকর্ষণীয় হতে পারে যা অন্য কারও কাছে  ততটা সুন্দর বা উপযুক্ত নাও মনে হতে পারে।  একটি ওয়েবসাইটের সর্বশেষ ডিজাইন একটি ব্র্যান্ডের পরিচায়ক। তাই ভালো ওয়েব সাইট নির্মাণের কিছু নির্দিষ্ট শর্ত আছে। এখানে ভালো ওয়েব সাইট নির্মাণের জন্য কিছু পরামর্শ একত্র করা হলঃ 

হোমপেজ  সাধারণ ও পরিমার্জিত রাখা

১। হোমপেজ  সাধারণ ও পরিমার্জিত রাখাঃ একটি হোমপেজ এর উদ্দেশ্য হল আপনার  ব্যবসার সকল ধরণের  তথ্য ও সেবাসমূহ সরাসরি গ্রাহকের কাছে তুলে ধরা। একজন  গ্রাহক ওয়েবসাইটে ঢুকে বেশি কিছু পড়ে না। শুধুমাত্র একটা ঢুঁ মারে। বেশিরভাগ গ্রাহক কিছু কি ওয়ার্ড দেখে নেয়, হয়তো প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য খুঁজে নেয় বা জরুরী কোন ছবি থেকেই তাদের প্রয়োজন মিটিয়ে নেয়। তাই বেশি শব্দ বা তথ্য রেখে খুব একটা লাভ নেই। 

একজন গ্রাহক আপনার কন্টেন্ট পছন্দ করবে যদি অল্প শব্দে আপনি আপনার সেবার বিবরণ তুলে ধরতে পারেন। তাই হোমপেজ সাজানোর সময় যে বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন সেগুলো হলঃ 

  • আপনার সাইটের সবগুলো বিষয় আলাদা আলাদা ভাগ করা রয়েছে এবং এদের মধ্যে যথেষ্ট গ্যাপ রয়েছে এটা নিশ্চিত করতে হবে যাতে পরিদর্শকরা  প্রতিটা বিষয় আলাদা করে বুঝতে পারে। 
  • আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য কন্টেন্ট এ বিভিন্ন ধরণের ভিজ্যুয়ালস এর ব্যবহার করতে হবে। 
  • ওয়েব সাইটে সাইন ইন, লগ আউট, পণ্য কেনাবেচা এইসব সুযোগ সুবিধা গ্রাহকদের জন্য সহজপ্রাপ্য করা উচিত। 
  • যেকোনো কন্টেন্ট গ্রাহকের কাছে  আকর্ষণীয় করে তুল্তে গুরুত্বপূর্ণ শব্দ হাইলাইট করে বা শিরোনাম হিসেবে দিয়ে দিলে গ্রাহকদের জন্য তা খুঁজে বের করা অনেক সহজ হয়ে যাবে। 

সহজপাঠ্য বিষয় দিয়ে ওয়েবসাইট সাজানোঃ

২। সহজপাঠ্য বিষয় দিয়ে ওয়েবসাইট সাজানোঃ ওয়েবসাইট লে আউট এমন হবে যাতে গ্রাহকরা সহজেই  কন্টেন্ট গুলো পড়তে পারে এবং সুযোগ সুবিধাগুলো স্পষ্ট ভাষায় উল্লেখ করা থাকে।

  • ছোট ফন্ট ব্যবহার পরিহার করা উচিত। অন্তত ১৬ পিটি ফন্ট ব্যবহার করা উচিত যাতে পাথক্রা পড়তে পারে। 
  • পাওয়ার কি ওয়ার্ড ব্যবহার করা যেতে পারে।
  • ফন্ট নির্ধারণ ভেবে চিন্তে করা উচিত। কন্টেন্ট এর উপর নির্ভর করে এবং গ্রাহকদের সুবিধা বিবেচনা করে ফন্ট নির্ধারণ করা উচিত। 
  • টেক্সট এর রঙ এবং ব্যাক গ্রাউন্ডের রঙের মধ্যে সামঞ্জস্য রাখা উচিত।
  • আপনার টেক্সটের শিরোনাম, সহশিরোনাম, প্যারাগ্রাফ, এইসব কিছু ঠিকভাবে উপস্থাপন করা জরুরী

চেষ্টাহীন পরিচালনাঃ

৩। চেষ্টাহীন পরিচালনাঃ আপনাকে শফলতার জন্য অবশ্যই চেষ্টা এবং পরিশ্রম করতে হবে। গ্রাহকদেরকে ধরে রাখতে এবং নতুন গ্রাহক পেতে আপনাকে অনেক নতুনত্ব এবং সৃজনশীলতার সাহায্য নিতে হবে। 

  • ওয়েবসাইট যাতে সহজেই খুঁজে পাওয়া যায় তা লক্ষ্য রাখতে হবে।
  •  অ্যাংকর মেনু  এবং ব্যাক টু টপ বাটনসহ পেজের যাবতীয় উপাদান সুন্দরভাবে বিন্যাস করতে হবে।
  • আপনার লোগো হোমপেজের সাথে এমনভাবে যুক্ত করুন যেন তা আকর্ষণীয় এবং কার্যকর হয়। 
  • জরুরী লিঙ্ক, আইকন এসবের সমন্বয়ে ফুটার যুক্ত করতে পারেন

৪। তথ্যক্রমের আকর্ষণীয় বিন্যাসঃ আপনার কন্টেন্টগুলো গুরুত্ব এর উপর ভিত্তি করে ক্রম অনুযায়ী সাজাতে হবে। যাতে ওয়েবসাইট পরিদর্শকরা সহজেই আপনার সেবা সম্পর্কে ধারনা পেয়ে যেতে পারে। 

  • লোগো এবং ব্যবসায়িক নাম অবশ্যই হাইলাইট করে দিতে হবে। এগুলো আপনার ব্যবসার পরিচয় বহন করে তাই খুবই গুরুত্বপূর্ণ 
  • ওয়েবসাইটের বিষয়গুলো ঠিকভাবে বসাতে হবে যাতে দেখতে সুন্দর হয় এবং গ্রাহকদের আকর্ষণ করার ক্ষমতাও রাখে। 
  • সঠিক রঙ, সামঞ্জস্যতা এবং গ্যাপ নির্ধারণ করা। 

৫। মোবাইল সহায়কঃ আপনার ওয়েবসাইট যাতে মোবাইলে চালানো যায় সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে। বর্তমান সময়ে বহু মানুষ মোবাইল ফোন দিয়ে তাদের কাজ চালায়। তাই ওয়েবসাইটের মোবাইল ফোন সমরথন করাটা জরুরী। তাই ওয়েবসাইট এমনভাবে সাজানো উচিত যাতে এটি যেকোনো ডিভাইস এর মাধ্যমে গ্রাহকরা পেতে পারে। এর জন্য ওয়েবসাইটের মোবাইল ভার্সনে গিয়ে এটা নিশ্চিত করতে হবে যে সব কন্টেন্ট এবং পেজ মোবাইলবান্ধব এবং গ্রাহকদের জন্য সহজপ্রাপ্য। 

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button